Friday , August 23 2019

শেষ হয়েছে পদ্মা সেতুর ২৯৪টি পাইল বসানোর কাজ

পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের মূল সেতুর সর্বশেষ পাইলটিও বসানো হয়েছে। রবিবার রাত ৮টা ১০ মিনিটে সেতুর ২৬ নং পিলারের (খুটি) ৭ নং পাইলের টপ সেকশনের পাইল স্থাপনের কাজ শেষ হয়।

ওইদিন বেলা ১১ টা ৩৫ মিনিটে পাইল বসানোর কাজ শুরু হলেও তা বসাতে সময় লাগে প্রায় সাড়ে ৮ ঘন্টা। এটি স্থাপনের মধ্যদিয়ে পদ্মা সেতুর মোট ২৯৪টি পাইলের সবক’টিই বসানোর কাজ সম্পন্ন হলো।

২০১৫ সালের ১২ ডিসেম্বর থেকে পাইল ড্রাইভ শুরু করার প্রায় সাড়ে তিন বছর পর গতকাল রবিবার সব ক’টি পাইল বসানো শেষ হয়।

পদ্মা সেতু প্রকল্পের প্রকৌশলীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ৪২টি পিয়ারের ওপর ৪১টি স্প্যানে গড়ে উঠবে পুরো পদ্মা সেতু। মূল নদীতে ৪০টি পিয়ার। নির্মাণকাজের শুরুতে মূল নদীর প্রতিটি পিয়ারে পাইলের সংখ্যা ছিল ৬।

আর দুই প্রান্তে ১ ও ৪২ নম্বর পিয়ারে ১২টি করে মোট ২৪টি পাইল। সব মিলিয়ে ৪২টি পিয়ারে পাইল ছিল ২৬৪টি। কিন্তু নদীর গভীর তলদেশে কাদামাটির স্তর থাকায় নতুন নকশা করতে হয়।

নতুন এই নকশায় ১ ও ৪২ নম্বর পিয়ারের ১৬টি করে মোট ৩২টি পাইল করা হয়। আর ২২টি পিয়ারে সাতটি করে পাইল ১৫৪টি এবং ১৮টি পিয়ারে ছয়টি করে মোট ১০৮টি পাইল রাখা হয়। সব মিলিয়ে ২৯৪টি পাইলে ৪২টি পিয়ারে থাকবে পদ্মা সেতু। ৪২টি পিয়ারের মধ্যে ১৪টি স্প্যান বসানোর পর পদ্মা সেতুর ২ হাজার ১০০ মিটার এখন দৃশ্যমান।

এখানে প্রায় ২৫ হাজার দেশী বিদেশী শ্রমিক কাজ করছেন। মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি ,

নদী শাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন এবং প্রকল্প এলাকা জুড়ে সার্বিক তত্ত্ববধায়নসহ কঠোর নিরাপত্তায় রয়েছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো।

পদ্মাসেতুর মাওয়া এবং জাজিরা উভয় প্রান্তে ভায়াডাক্ট এর পাইলিং এবং পিলারের কাজ শেষে এখন গার্ডার স্থাপনের কাজ চলছে। ইতোমধ্যে দুই প্রান্তে টোল প্লাজা এবং সংযোগ সড়ক নির্মাণ কাজ শতভাগ শেষ হয়েছে।