কালবৈশাখী ঝড়ে ১২ গ্রাম লণ্ডভণ্ড, নিহত ১

বরিশালের মুলাদীতে কালবৈশাখী ঝড়ে গাছ চাপা পড়ে রাশিদা বেগম (৩৫) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া ঝড়ে মুলাদীর শফিপুর ও চরকালেখান ইউনিয়নের ৪টি গ্রাম এবং আগৈলঝাড়া উপজেলার রাজিহার ইউনিয়নের ৮টি গ্রাম লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে।

মঙ্গলবার বিকালে আকস্মিক কালবৈশাখী ঝড়ের সময় মুলাদী উপজেলার পশ্চিম বোয়ালিয়া গ্রামের জালাল মজুমদারের স্ত্রী রাশিদা বেগম গোয়াল ঘরে গরু বাঁধতে গিয়ে গাছ চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান।

একই সময়ে ঝড়ে সফিপুর ইউনিয়নের পশ্চিম বোয়ালিয়া ও চরমালিয়া গ্রাম এবং চরকালেখান ইউনিয়নের চরকালেখান ও দক্ষিণ গাছুয়া গ্রামসহ বিভিন্ন এলাকার অর্ধশতাধিক কাঁচা বাড়ি-ঘর এবং বহু গাছপালা বিধ্বস্ত হয় বলে নিশ্চিত করেছেন সফিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু মুছা হিমু মুন্সী।

এদিকে একই সময়ে কালবৈশাখী ঝড়ে জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার রাজিহার ইউনিয়নের বড় বাশাইল, ছোট বাশাইল, লাখারমাটিরা, চৌদ্দমেধা, পশ্চিম গোয়াইল, ভাজনা, কান্দিরপাড়, খাজুরিয়া এবং চেঙ্গুটিয়া গ্রামের কয়েকশ’ কাঁচা ঘর,

পানের বরজ, বির্স্তীর্ণ পাকা ধানের ক্ষেত, পোল্ট্রি ফার্ম এবং গাছপালা বিধ্বস্ত হয় বলে জানান রাজিহার ইউপি চেয়ারম্যান ইলিয়াছ তালুকদার। ঝড়ে প্রায় ৩ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি জানান।

তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করে উপজেলা প্রশাসনের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে বলে জানান ইউপি চেয়ারম্যান ইলিয়াছ তালুকদার।