স্বামী স্ত্রী পরিচয়ে হোটেলে ঘর ভাড়া অতঃপর যা হল! জানুন বিস্তারিত…

কিন্তু, ইদানিং আবার দিঘায় গিয়ে আত্মহত্যার করার প্রবণতাও বাড়ছে। হোটেল ঘরে আত্মহত্যা করছেন প্রেমিকা-প্রেমিকারা। শুক্রবার সকালে ফের নিউ দিঘার একটি হোটেল থেকে এক তরুণ ও তরুণীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করল পুলিশ। /

হোটেলের রেজিস্টার থেকে জানা গিয়েছে, মৃতেরা হলেন শংকর সরকার ও অতসী সরকার। শংকরের বাড়ি হুগলির তারকেশ্বরের মোক্তারপুরে।/

শুক্রবার সকালে হোটেলে ঘরে তাঁদের ঝুলন্ত দেহ পাওয়া গেল।দিঘায় বেড়াতে গিয়ে দম্পতি পরিচয় দিয়ে হোটেলে ঘর ভাড়া নিয়েছিলেন তরুণ ও তরুণী। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে নিউ দিঘায়। /

ঘটনার তদন্তে দিঘা থানার পুলিশ। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, আত্মহত্যাই করেছেন ওই তরুণ ও তাঁর সঙ্গিনী। কিন্তু, কেন তাঁরা আত্মহত্যা করলেন? ওই তরুণ ও তরুণী কি আদৌও দম্পতি? উত্তর খুঁজছেন তদন্তকারীরা।সময় বা খরচ কোনওটাই বেশি নয়। সপ্তাহান্তের ছুটিতে পূর্ব মেদিনীপুরের সৈকত শহর দিঘায় পর্যটকদের ঢল নামে।/

পুলিশ জানিয়েছে, গত ১৫ মে দিঘায় বেড়াতে এসেছিলেন শংকর ও অতসী। নিউ দিঘায় যুব আবাসের একটি হোটেলে ঘর ভাড়া নিয়ে থাকছিলেন তাঁরা। হোটেলে ঘর নেওয়ার সময়ে নিজেদের দম্পতি বলে পরিচয় দিয়েছিলেন ওই তরুণ-তরুণী। /

নিজেরাই রান্না করে খাচ্ছিলেন। শুক্রবার হোটেল ছেড়ে দেওয়ার কথা ছিল তাঁদের। হোটেলকর্মীদের দাবি, সকালে বিস্তর ডাকাডাকি করেও শংকর ও অতসীর কোনও সাড়া পাওয়া যায়নি। সন্দেহ হওয়ায় পুলিশে খবর দেয় হোটেল কর্তৃপক্ষ। ঘরের দরজা ভেঙে দুটি ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে দিঘা থানার পুলিশ।/

দিঘার থানার ওসি বাসুকিনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, তারকেশ্বর থানার মাধ্যমে মৃতদের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা চলছে। আত্মহত্যার কারণ ও মৃতেরা আদৌও দম্পতি ছিলেন কি না, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।/

প্রাথমিক তদন্তে অনুমান, হোটেলে ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন ওই তরুণ ও তরুণী। হোটেলের রেজিস্টারটি বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। সিল করা দেওয়া হয়েছে ঘরটিও।/