চলতি মাসেই পাতাল রেলের জগতে প্রবেশ করবে বাংলাদেশ

রাজধানীর ঢাকার যানজট নিরসনে চলতি মাসেই দেশের প্রথম পাতাল রেলের জগতে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ। জানুয়ারির শেষ সপ্তাহে নির্মাণকাজের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

কমলাপুর থেকে এয়ারপোর্ট ও পিতলগঞ্জ পর্যন্ত মেট্রোর এ নতুন পথ তৈরি করছে ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)। এর আগে গত ২৮ ডিসেম্বর দেশের প্রথম মেট্রোরেল উদ্বোধন করেন তিনি।

দেশের প্রথম উড়াল রেলের পর এবার শুরু হতে যাচ্ছে পাতাল রেল। এমআরটির লাইন ওয়ানের আওতায় কমলাপুর থেকে এয়ারপোর্টের তৃতীয় টার্মিনাল পর্যন্ত হবে এ রেলপথ। থাকবে উড়াল অংশও, যা নতুন বাজার থেকে পূর্বাচলের পিতলগঞ্জ পর্যন্ত যাবে।

দীর্ঘ ২৬.৬ কিলোমিটার এ রেলপথের পাতাল অংশ ১৬.৪ কিলোমিটার, আর উড়াল অংশ ১০.২ কিলোমিটার। ডিপো হবে পিতলগঞ্জে। চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে ডিপো নির্মাণের কাজ শুরু হতে যাচ্ছে, যা উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

ডিএমটিসিএল-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন ছিদ্দীক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর উদ্বোধন করবেন। এ বিষয়ে একটি পত্র সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগে পাঠিয়েছি। তারা এ বিষয়ে কাজ করছেন। যে কোনো দিন আম’রা তারিখ পেয়ে যেতে পারি। আর সেভাবেই আম’রা নির্মাণকাজ শুরুর প্রস্তুতি নিচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, মেট্রোরেল প্রকল্প পাতাল পথ তৈরির জন্য ৪টি পয়েন্টে সুড়ঙ্গ করে বোরিং মেশিন ঢুকানো হবে। দ্রুত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করতেই এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে অ’তিরিক্ত বোরিং বা

সুড়ঙ্গ পথ তৈরির মেশিন রাখার নির্দেশনা দেয়া হবে, যাতে কোনো কারণে মেশিন নষ্ট হয়ে গেলে কাজ থেমে না যায়। প্রাথমিক পরিকল্পনা অনুসারে এমআরটি লাইন ওয়ানের কাজ ২০২৬ সালের মধ্যে শেষ হবে বলে আশা করছে ডিএমটিসিএল।