১১০০ দিন পর রোহিতের সেঞ্চুরি, ভারতের রানের পাহাড়

ওয়ানডেতে ১১০০ দিন পর সেঞ্চুরির দেখা পেলেন ভারতের অধিনায়ক রোহিত শর্মা। ২০২০ সালের জানুয়ারিতে বেঙ্গালুরুতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১১৯ রানের ইনিংস খেলেছিলেন।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দ্বিশতক হাঁকানো গিলও শতক পেয়েছেন। এই দুই শতকের সঙ্গে হার্দিক পান্ডিয়ার অর্ধশতকে ইন্দোরে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে ৯ উইকেটে ৩৮৫ রান করেছে ভারত। টসে জিতে ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছিলেন কিউই অধিনায়ক টম ল্যাথাম।

ওয়ানডে ক্রিকেটে রোহিতের শতক না পাওয়াটা বেশ ভাবিয়েই তুলেছিল সবাইকে। অথচ, ৫০ ওভারের ক্রিকেটে তিনটি দ্বিশতকের মালিক তিনি। রোহিত এত দিন অর্ধশতক পেয়েছেন

বেশ কয়েকটি, তিন অঙ্কেই শুধু পৌঁছতে পারছিলেন না। যদিও তিনি বলেছিলেন, শতক পাওয়াটা সময়ের অপেক্ষাই তার জন্য। সেই অপেক্ষাটা আজ ফুরিয়েছে ইন্দোরে।

এটি ওয়ানডেতে রোহিতের ৩০তম শতরান। আজকের শতকে তিনি পাশে বসেছেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক রিকি পন্টিংয়ের। তিনি এখন পন্টিংয়ের সঙ্গে যৌথভাবে ওয়ানডে ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ শতরানের মালিক।

রোহিতের সামনে যে দুজন আছেন, তারা দুজনই ভারতীয়-শচীন টেন্ডুলকার ও বিরাট কোহলি। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আজকের শতকটি রোহিতের দ্বিতীয় দ্রুততম ওয়ানডে শতক। ২০১৮ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিনি ৮২ বলে তার দ্রুততম শতকটি করেছিলেন।

রোহিতের ইনিংসটি ছিল তার মতোই। ৮৫ বলে ১০১। ৯টি বাউন্ডারি আর ৬টি ছক্কা ছিল তার ইনিংসে। শেষ পর্যন্ত বোল্ড হয়েছেন মিচেল ব্রেসওয়েলের বলে। শুবমান গিল ১১২ করে

উইকেটের ডেভন কনওয়েকে ক্যাচ দিয়েছেন ব্লেইর টিকনারের বলে। ৭৮ বলের ইনিংসে গিল বাউন্ডারি মেরেছেন ১৩টি, ছক্কা ৫টি। রোহিত-গিলের ওপেনিং জুটিতে রান এসেছে ২১২।

রোহিত, গিল ফেরার পর বিরাট কোহলি, সূর্যকুমার যাদবরা বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। টিকতে পারেননি ঈশান কিষানও। কোহলি ২৭ বলে ৩৬ করে ফিরেছেন জ্যাকব ডাফির বলে ফিন অ্যালেনের ক্যাচ হয়ে।

সূর্যকুমারকেও ফিরিয়েছেন ডাফি। ঈশান হয়েছেন রানআউট। আর শেষ দিকে হার্দিক পান্ডিয়ার ৩৮ বলে ৫৪ রানে ভর করে ৩৮৫ রান করেছে ভারত।