এবার বাংলার কিং স্টার মাশরাফিকে নিয়ে বোমা ফাটিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন নান্নু!!

বিপিএলে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা মাশরাফি বিন মুর্তজা টক অব দ‌্য টাউন। সিলেট স্ট্রাইকার্সের অধিনায়ক বল হাতে ধ্রুপদী। ৮ মাস পর প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে ফিরে মাশরাফি ৬ ম‌্যাচে ২০ ওভারে পেয়েছেন ৯ উইকেট।

যেখানে তার বোলিং গড় ১৫ এবং ইকোনমি ৬.৭৫। উইকেট শিকারিদের তালিকায় মাশরাফির ওপরে আছেন শুধু ওয়াহাব রিয়াজ (৫ ম্যাচে ১১ উইকেট)। মাঠে শতভাগ নিবেদনে বরাবরের মতোই মুগ্ধ করেছেন। সঙ্গে বৈচিত্র‌্যপূর্ণ বোলিংয়ে জানান দিয়েছেন,

এখনও বল হাত কতটা কার্যকর। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে মাশরাফি অবসরে গিয়েছেন। ওয়ানডে চালিয়ে যাচ্ছেন। আর ঘরোয়া ক্রিকেটে দুই ফরম‌্যাটেই খেলছেন। আনুষ্ঠানিক অবসরের সুযোগ পাননি। ওয়ানডে দল থেকে বাদ পড়ার পর ফেরার সুযোগ পাননি।

মাঠে পারফর্মার কেউই নির্বাচকদের আড়াল হচ্ছে না তা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু, ‘ঘরোয়া ক্রিকেটে যারা খেলে সবাইকেই কিন্তু বিবেচনায় রাখা হয়। কাউকে চোখের আড়াল করা হবে না।

যাকে যখন দরকার হবে তাকে নিয়ে চিন্তাভাবনা করা হবে।’মাশরাফির পারফরম‌্যান্সকে নজরে রেখেছেন বলে জানালেন তিনি, ‘লিজেন্ড ক্রিকেটার তো সবসময় লিজেন্ডের মতোই চলে। তরুণদের জন্য মাশরাফির কাছ থেকে শেখার আছে।

কীভাবে এই বয়সে পারফর্ম করতে হয়, নিজের ফিটনেস ধরে রাখতে হয়। অনেক কিছুই শেখার আছে। তরুণদের জন্য প্রেরণাদায়ক।’ জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়কের ভালো পারফরম‌্যান্সের কারণে দীর্ঘদিন ধরে আলোচনায় থাকা তার মাঠ থেকে বিদায়ের

বিষয়টি নিয়ে আবার কথা হচ্ছে। এ নিয়ে নির্বাচক কমিটির সদস‌্য আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, ‘এটা সম্পূর্ণ বোর্ডের সিদ্ধান্ত। এসব স্পেশাল সিদ্ধান্ত। যদি বোর্ড এই সিদ্ধান্ত নেয়, আমাদের কোনো আপত্তি নেই এই ব্যাপারে। আমরা চাই খেলোয়াড়রা

মাঠ থেকে যেন বিদায় নেয়। দেখতেও ভালো লাগবে, মানুষও খুশি হবে। এটা পুরোপুরি বোর্ডের সিদ্ধান্ত। বোর্ড এই সিদ্ধান্ত নিলে আমরা সম্মান করব। শুধু মাশরাফির ক্ষেত্রে নয়,সবাই।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যারা অনেক দিন ধরে খেলেছে, সবার ক্ষেত্রে এমন হলেই ভালো। খেলোয়াড়েরও একটা স্মৃতি থাকবে। মাঠ থেকে বিদায় নিলে খারাপ হয় না।’